সারাদেশের মাদ্রাসাসমূহ (বিভাগ ভিত্তিক)

মাওলানা মনীর উদ্দীন (রহ.)

এপ্রিল ১০ ২০১৯, ০৯:০৩

নাম :- মাওলানা মনীর উদ্দীন (রহ.)

জন্ম / জন্মস্থান :- ওলীয়ে কামেল, জ্ঞানতাপস ও মহান মনীষী মাও: মনীর উদ্দীন (রহ.) ১৯৩১ ইং মোতাবেক ১৩৫২ হিজরীর রজব মাসে তৎকালীন সিলেট জেলার হবিগঞ্জ মহকুমার ঔতিহ্যবাহী দিনারপুর পরগনার সদরঘাট গ্রামে মুন্সী মজহর উদ্দীনের ঔরশে জন্ম গ্রহণ করেন।

শৈশব কাল :- প্রাথমিক লেখাপড়ার হাতেখড়ি পিতা মজহর উদ্দীন (রহ.) এর কাছে। এরপর ১৯৪৭ ইং সনে গজনাইপুর এম.ই স্কুলে ভর্তি হয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত অত্যন্ত কৃতিত্বের সাথে লেখাপড়া করেন। অতঃপর ইলমে ওহীর জ্ঞান লাভের উদ্দেশ্যে মৌলভীবাজারের তখনকার সুপ্রসিদ্ধ বিদ্যাপীঠ কাসিনাথ আলিয়া মাদরাসায় ভর্তি হন। সেখানে তিনি আলিয়া চাহারম পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। এরপর সুপ্রসিদ্ধ আলেম ও বুযুর্গ হযরত শায়খে মারুকুনী (রহ.) এর পরামর্শে কওমী মাদরাসায় ভর্তি হন। শায়খে মারুকুনী (রহ.) নিজ দায়িত্বে তাঁকে মাজাহিরুল উলূম হাজীপুর মাদরাসায় ভর্তি করেন।

শিক্ষা জীবন :- উচ্চশিক্ষাঃ- মাজাহিরুল উলূম হাজীপুর মাদরাসায় অত্যন্ত সুনামের সাথে মাধ্যমিক শিক্ষা সমাপ্ত করে ইসলামী জ্ঞান সাধনার প্রবল আগ্রহ নিয়ে ইলমে দ্বীনের সর্বোচ্চ শিক্ষা লাভের উদ্দেশ্যে জামেয়া হুছাইনিয়া রানাপিং মাদরাসায় ভর্তি হন। সেখানে দীর্ঘ ছয় বছর হাদীস, তাফসীর, ফিকাহ, বালাগাত, আরবী সাহিত্য সহ বিভিন্ন বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করেন। মাদরাসায় পড়াকালীন তিনি ছিলেন সকল উস্তাদের প্রিয়ভাজন। বিশেষত রানাপিং মাদরাসার হযরতুল আল্লাম শায়খুল হাদীস রিয়াসত আলী (রহ.) তাঁকে খুবই স্নেহ করতেন।

কর্ম জীবন :- মাও: মনীর উদ্দীন (রহ.) কর্ম জীবনের শুরুতে মাজাহিরুল উলূম হাজীপুর মাদরাসায় ২ বছর শিক্ষকতা করেন। অতঃপর হযরত শায়খে দিনারপুরী (রহ.) তাঁকে নিজ মাদরাসা জামিআ’ ইসলামিয়া আরাবিয়া (বালিধারায়) নিয়ে আসেন। উক্ত জামিআ’য় তিনি আজীবন (৩৭ বছর) অত্যন্ত দক্ষতার সাথে শিক্ষাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন।

অবদান :- স্বতন্ত্রধর্মী পাঠদান, যোগ্য শাগরেদ তৈরি ইসলামী শিক্ষার প্রচার ও প্রসার অধর্ম অন্যায়ের বিরুদ্ধে সংগ্রাম, শান্তিপূর্ণ জীবন ব্যবস্থা কায়েম ও নৈতিক অবক্ষয়রোধকল্পে তিনি আজীবন বলিষ্ঠ ভুমিকা গ্রহণে ধর্ম ও জাতির বিশেষ খেদমত আঞ্জাম দিয়ে গেছেন।
আমানতদারীঃ- তিনি ছিলেন আমানতদারীতার মূর্ত প্রতীক। এলাকার সর্বস্থরের লোকজন তাঁর কাছে আমানত রাখতো। জীবনে কোনো লোক বলে নি যে, আমার জিনিসের সামান্যতম কোনো ক্ষতি হয়েছে। লোকেরা বলতো মাও. মনীর উদ্দীন (রহ.) এর নিকট যেভাবে ভাঁজ করে টাকা দিতাম সেভাবেই টাকা ফেরত পেতাম। সদরঘাট নতুন বাজার এবং বিজনার বাজার এর লোকেরা এ দুটি বাজার মাও. মনীর উদ্দীন (রহ.) এর নামে রেজেস্ট্রি করেছিল। যা আজ পর্যন্ত তাঁর নামেই রেজিস্ট্রিতে আছে। তাঁর জীবদ্দশায় লোকেরা তার কাছে যে আমানত রেখেছিল, মৃত্যুর একদিন পর তোর ব্যবহৃত আলমারি খুলে দেখা গেল, যার যা কিছু ছিল প্রত্যেকটা জিনিসে মালিকের নাম লিপিবদ্ধ আছে। এমনকি তার ব্যবহৃত আলমারির মধ্যে ছোট বাচ্চাদের খেলার দুইটি লুডু পাওয়া গেল, যাতে বাচ্চাদের নাম লেখা ছিল।

মৃত্যু তারিখ :- ১৯৯৭ ইং সনের ২৭ জুলাই, মোতাবেক ১২ ই শ্রাবণ, ২২ রবিউল আওয়াল ১৪১৮ হিজরি রোজ: রবিবার রাত ৯.৫০ মিনিটের সময় কুরআন তেলাওয়াত করতে করকে তিনি মাওলার সান্নিধ্যে চলে যান।

তথ্য দানকারীর নাম :- সৈয়দ মুনিমুল হাসান (আদিল)

তথ্য দানকারীর মোবাইল :- ০১৭৪৩০০২০৭৮

Spread the love